ফরাসি বিপ্লবে দার্শনিকদের ভূমিকা - প্রত্যক্ষ না পরোক্ষ যুক্তি

ফরাসি বিপ্লবে দার্শনিকদের ভূমিকা - প্রত্যক্ষ না পরোক্ষ যুক্তি

১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দে ফরাসি বিপ্লবের জন্য সামাজিক, অর্থনৈতিক প্রেক্ষাপটের সাথে সাথে দার্শনিকদের ভূমিকা নিয়েও ঐতিহাসিকদের মধ্যে বিতর্কের অন্ত নেই। একদল ঐতিহাসিক মনে করেন তৎকালীন রাষ্ট্র, সমাজ, অর্থনীতি বৈপ্লবিক পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছিল - দার্শনিকদের ভূমিকা ছিল নগণ্য। আর একদল ঐতিহাসিক মনে করেন বৈপ্লবিক পরিস্থিতিতির সাথে সাথে দার্শনিকরা বিপ্লবের মানসিক ক্ষেত্র প্রস্তুত করেছিল।

বিপক্ষের যুক্তি:
ঐতিহাসিক লেফেভর, মর্স, স্টিফেন, মিশলে প্রমুখ ঐতিহাসিক মনে করেন, ফরাসি বিপ্লবে দার্শনিকদের ভূমিকা ছিল নগণ্য। তাদের বক্তব্যের মূল বিষয় ছিল-
  • ১। দার্শনিকরা প্রত্যক্ষভাবে বিপ্লবে যোগ দেয়নি। বিপ্লব শুরু হওয়ার পূর্বেই অনেকে মারা গিয়েছিল।
  • ২। দার্শনিকদের মধ্যে মতানৈক্য ছিল না। মন্তেস্কু নিয়মতান্ত্রিকভাবে রাজতন্ত্রে, ভলতেয়র প্রজাতান্ত্রিক স্বৈরাচারে এবং রুশো প্রজাতন্ত্রে বিশ্বাসী ছিলেন।
  • ৩। দার্শনিকরা ফ্রান্সের সমাজ ব্যবস্থার পরিবর্তণ চাইলেও কোন পথে এবং কিভাবে এই পরিবর্তন আসবে তা পরিস্কার ভাবে জানাননি।
  • ৪। তাদের প্রচারিত মতবাদের মধ্যে কোন নতুনত্ব ছিল না। তারা সকলেই জন লকের মতবাদকেই অনুসরণ করে ছিলেন।
  • ৫। ফ্রান্সের বেশি ভাগ মানুষ অশিক্ষিত হওয়ায় দার্শনিকদের রচনা কেবল মাত্র মধ্যবিত্ত শ্রেণির মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল।

পক্ষের যুক্তি:
উপরিক্ত যুক্তি গুলির বিরোধীতা করেছেন ঐতিহাসিক এডমন্ড বার্গ, স্যাঁতোব্রিয়া প্রমুখ। এরা ফরাসি বিপ্লবে দার্শনিকদের ভূমিকাকে গুরুত্ব দিয়েছেন।
  • ১। দার্শনিকদের কাজ হল যুক্তির আলোকে প্রচলিত ব্যবস্থার উপযোগীতা পরিক্ষা করা। তারা বিপ্লবের ডাক দেবেন, কিংবা প্রত্যক্ষভাবে বিপ্লবে অংশ নেবেন। এটা আশা করা যায় না।
  • ২। বিভিন্ন দার্শনিকদের মধ্যে মত পার্থক্য ছিল ঠিকই। কিন্তু তাদের মূল মন্ত্র ছিল পুরাতন তন্ত্রকে স্বমূলে উৎপাটিত করা।
  • ৩। দার্শনিকরা রাষ্ট্র ও সমাজের পরিবর্তনের প্রসঙ্গ নিয়ে দিশেহারা ছিল ঠিকই। কিন্তু তারা যুক্তিবাদকে প্রধান অস্ত্র হিসাবে গ্রহন করে তা জনগনের মধ্যে ছড়িয়ে দিয়েছিল।
  • ৪। তাদের মতবাদের মধ্যে নতুনত্ব না থাকলেও তারা জনগনের মধ্যে আশার সঞ্চার করেছিল।
  • ৫। দার্শনিকদের রচনা সাধারণ মানুষ পড়ত না বলে যে অভিনব প্রকাশ করা হয়েছে তা ঠিক নয়। ঐতিহাসিক মর্লে‌মনে করেন, দার্শনিকদের রচনার প্রভাব জনগনের মধ্যে ব্যপকভাবে ছড়িয়ে পরেছিল।

পরিশেষে বলা যায়, দার্শনিকরা প্রত্যক্ষভাবে বিপ্লবে যুক্ত না থাকলেও বিপ্লবের জন্য জনগনের মানসিক ক্ষেত্র প্রস্তুত করেছিল। প্রকৃতপক্ষে তৎকালীন সমাজ, রাষ্ট্র, অর্থনীতি বিপ্লবের পটভুমি তৈরি করেছিল। দার্শনিকরা তাদের রচনার মাধ্যমে জনগনের মানুসিক চিন্তার বিস্ফোরন ঘটিয়ে ছিল মাত্র। এই সমস্ত দিক বিবেচনা করে ফরাসি বিপ্লব সংগঠনে দার্শনিকদের ভূমিকাকে পরোক্ষ বলে মেনে নিলেও বিপ্লবে তাদের ভূমিকাকে কখনই অস্বীকার করতে পারিনা।
Next Post Previous Post